মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০১৯ | | ২১ শাওয়াল ১৪৪০
banner

শ্রীপুরে শ্রমিকলীগ নেতা শিপুর ইন্তেকাল : মৃত্যুর আগে ফেসবুকে আবেগঘন ষ্ট্যাটাস

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৯, ০৫:১৩ পিএম

শ্রীপুরে শ্রমিকলীগ নেতা শিপুর ইন্তেকাল : মৃত্যুর আগে ফেসবুকে আবেগঘন ষ্ট্যাটাস

আরিফ প্রধান, শ্রীপুর -গাজীপুর :গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার রাজাবাড়ি ইউনিয়নের ডোবাইবাড়ি গ্রামের মৃত কফুল উদ্দিনের একমাত্র ছেলে ও পৌরসভা ১ নং ওয়ার্ডের শান্তিবাগ গ্রাম (গোলাপদিবাড়ির) বাসিন্দা আঃ হাই এর মেয়ের ঘরের নাতি শেখ শিপন ইসলাম (শিপু)সোমবার ভোর আনুমানিক ৫ ঘটিকার সময় হ্রদ রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল ফরমাইয়াছেন। তার জন্ম শান্তিবাগে এবং তিনি এখানেই বড় হোন, তিনি তার পরিবার সহ শ্রীপুর শান্তিবাগ এলাকায় তার নানার বাড়ির পাশে বাড়ি নির্মান করে এখানেই বসবাস করতেন।

জানাযায়, তিনি রাত তিন টার দিকে বুকে ব্যাথার কারনে ছটফট করতে থাকেন, এক পর্যায়ে তিনি স্ট্রোক করেন, স্ট্রোক করছে এটা বুজতে পেরে সাথে সাথে তার পরিবারের লোকজন তাকে শ্রীপুর উপজেলা হাসপাতালে নেয়, সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল আনুমানিক ৩২ বছর। তিনি স্ত্রী, ছোট ছোট তিনজন কন্যা সন্তান, ও বিধবা মা কে রেখে গেছেন।

তিনি আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন, বর্তমান গাজীপুর ৩ আসনের মাননীয়  সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ এর অনুসারী হিসেবে রাজনীতি করতেন।  শ্রমিকলীগের নেতা হিসেবেও পরিচিত ছিলো। তিনি শ্রীপুর উপজেলা শাখার জয় বাংলা নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

সোমবার বাদ জোহর শ্রীপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজার নামাজ শেষে তার বাবার পুরাতন বাড়ি রাজাবাড়ির ডোয়াইবাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এদিকে তার এই অকাল মৃত্যুতে এলাকাতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। পরিবারের লোকজন হয়ে গেছে দিশেহারা।    

মৃত্যুর প্রায় ২২ দিন আগে হয়ত তিনি আর দুনিয়ায় থাকবেনা এটা বুজতে পেরে তার নিজ ফেসবুক ওয়াল থেকে এক আবেগঘন ষ্ট্যাটাস দেন পোস্টটি তুলে ধরা হলো:

আমার ২০ বছর বয়সে বাবা মারা যান রেখে যান আমার এতিম বিধবা মাকে, আমরা দুটি ভাই বোন ও আমার স্ত্রী ৩টি কন্যা সন্তান সহ আমার ছোট্ট একটা সংসার এই সংসার টাকে পালার মতন যত পরিশ্রম জীবনে করেছি এবং আজ পর্যন্ত করে যাচ্ছি, হঠাৎ একদিন পরিশ্রম এর ফাঁকে রাজনীতিতে জড়িয়ে গেলাম তা আবার এমন এক মহৎ লোকের পিছনে রাজনীতি শুরু করলাম উনি হলেন আজকের এমপি মহোদয় জননেতা মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ ভাই, এই রাজনিতীর পিছনে গিয়ে কত নির্যাতিত হলাম কখনো কারও হাতে দৌড় কখনো আর কারো হাতে মার খেলাম অবশেষ জেল খাটলাম শুধুমাত্র এই রাজনীতির জন্য, আজও পর্যন্ত কোন নেতা কেউ দশটি টাকা দেয়নি, বলেনি যে নাও তোমার সংসারের কাজে লাগাও, নিজের জন্য নিজে কষ্ট করে সংসার চালাচ্ছি, তা কি লাভ আজও পর্যন্ত কোন নেতার কিংবা এমপি মহোদয়র ও মন পেলাম না, তাই শুধু বলি আর কিছু না হোক এমপি মহোদয়ের কাছে বলবো আমায় একটু দোয়া করবেন , যাতে আমার এতিম বিধবা মাকে নিয়ে শান্তশিষ্টভাবে সংসারটা চালাতে পারি, আমার কোন ভাই নেই, আমি আমার সংসারে একা তাই সবার দোয়া চাই, আমি মারা গেলে আমার সংসারটা শূন্য হয়ে যাবে, এতিম হয়ে যাবে আমার তিনটি সন্তান এতিম বিধবা মা ছোট বোন ও ভাগ্নিরা, যদি কারো ভালো লাগে শেয়ার করবেন ও আমার জন্য দোয়া করবেন।

সর্বশেষ সংবাদ