বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯ | | ১৬ শাওয়াল ১৪৪০
banner

টনক নড়েছে পিসিবির, এবার খুশি পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা

প্রকাশ : ২৫ মে ২০১৯, ০৭:৫১ পিএম

টনক নড়েছে পিসিবির, এবার খুশি পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা

ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র চার দিন। এর আগেই বড়সড় ধাক্কা খেল শিরোপার অন্যতম দাবিদার পাকিস্তান। কারণ এবারের বিশ্বকাপ যে ইংল্যান্ডের মাটিতেই। এই কন্ডিশনে পাকিস্তানের সাফল্যগাঁথা কারোরই অজানা নয়। ২০০৯ সালে সেখানেই প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পেয়েছিল পাকিস্তান। এরপর ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে আয়োজিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপাও নিজেদের ঘরে তুলেছে পাকিস্তান।


তাই অন্ততপক্ষে ইংলিশদের কন্ডিশনে পাকিস্তানকে ফেবারিটের তালিকা থেকে বাদ দিতে চাইবেন না ক্রিকেট সংশ্লিষ্টরা। একাধিক শিরোপা জেতা দলটিও এবার বিশ্বকাপ জিতে দেশটিতে শিরোপার হ্যাটট্রিক পূর্ণ করতে চায়। কিন্তু এর আগেই দুঃসংবাদ শুনতে হল পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের।


প্রায় দুই মাসব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় এই টুর্নামেন্টে স্ত্রী-সন্তানদের পাশে পাবেন না পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড পিসিবির এক আদেশে জীবনসঙ্গীদের দেশে রেখেই বিশ্বকাপ খেলতে হবে সরফরাজ বাহিনীকে।


পিসিবির মনে হয়েছে, স্ত্রী-বান্ধবীদের নিয়ে গেলে ক্রিকেটারদের মনঃসংযোগে ব্যাঘাত ঘটবে, পাকিস্তানের বিশ্বকাপ জেতার পথে যা অন্তরায় হয়ে দেখা দিতে পারে। কিন্তু পিসিবি নিজেদের অবস্থা থেকে আস্তে আস্তে সরে আসছে। বিশ্বকাপে পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের সঙ্গে স্ত্রী-বান্ধবী থাকতে পারবে, কিন্তু সেটা ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে নয়!


কিছুদিন আগে স্ত্রী-বান্ধবীদের ইংল্যান্ডে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে পিসিবিকে লিখিত অনুরোধ জানিয়েছিলেন পাকিস্তানি অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। পিসিবি কর্ণপাত করেনি। বিশেষ বিবেচনায় আসিফ আলী ও হারিস সোহেলকে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়েছিল। কিছুদিন আগে আসিফ আলীর দুই বছর বয়সী কন্যাসন্তান ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধে হেরে মারা গেছে, হারিস সোহেলেরও পারিবারিক সমস্যা চলছিল।


এখন অন্যান্য দেশের অনুমতি দেওয়া দেখে পিসিবির টনক নড়েছে। তার ওপর পাকিস্তানের ফর্মও যাচ্ছে জঘন্য। কিছুদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হওয়া পাকিস্তান ইংল্যান্ডের কাছেও সিরিজ হেরেছে ৪-০ ব্যবধানে। একটা ম্যাচও জিততে পারেনি। এমনকি প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছেও হেরে গেছে দলটি। স্ত্রী-বান্ধবী সঙ্গে না থেকে তাহলে লাভ হচ্ছে কোথায়? এ কারণেই বিশ্বকাপে খেলোয়াড়দের স্ত্রী-বান্ধবীদের নিয়ে আসার অনুমতি দিচ্ছে পিসিবি। কিন্তু টুর্নামেন্টের প্রথম থেকেই তাদের ইংল্যান্ডে আনতে পারবেন না। আনতে পারবেন শুধু ভারতের বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটার পরেই।


ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটার আবেদন, গুরুত্ব, দুই দলের কাছেই আকাশছোঁয়া। পিসিবি চাচ্ছে, স্ত্রী-বান্ধবীদের নিয়ে আসার কথা বলে যদি খেলোয়াড়দের উদ্দীপ্ত করা হয়, সেটা ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের ফলাফলে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে তাদের জন্য। পাকিস্তানি খেলোয়াড়েরাও সেই আগ্রহে ভারতের বিপক্ষে ভালো খেলার একটা আলাদা প্রেরণা পাবেন। তার ওপর, দুই দেশের সাম্প্রতিক অবস্থাও বন্ধুসুলভ নয়।


কাশ্মীর হামলাকে কেন্দ্র করে দুই দেশের সম্পর্কের অনেক অবনতি হয়েছে, সে আঁচ লেগেছে ক্রিকেটেও। দুই দলই এখন যেকোনো মূল্যে পরস্পরকে হারাতে চায়। এবারের পাকিস্তান-ভারত ম্যাচটা আর শুধু ক্রিকেটীয় গণ্ডিতে সীমাবদ্ধ নেই। জুনের ১৬ তারিখে ম্যানচেস্টারে ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে পাকিস্তান।

সর্বশেষ সংবাদ