বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ | | ১৯ শা'বান ১৪৪০
banner

দেশে ফিরতে সাকিবকে চিঠি দিচ্ছে বিসিবি

প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ০৭:২০ পিএম

দেশে ফিরতে সাকিবকে চিঠি দিচ্ছে বিসিবি

একটা সময় বিদেশ বিভুঁইয়ে কেউ পড়ে থাকলে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হতো চিঠি। সময় বদলেছে। এখন আর ডাকযোগে চিঠি দেওয়ার হ্যাপায় কেউ যায় না। তবে চিঠির প্রচলন ঠিকই আছে। সেটি ইলেকট্রনিক চিঠি (ই-মেইল)। বিসিবি সভাপতি এই চিঠির কথাই হয়তো বলেছেন। চিঠিটা দেওয়া হবে ভারতে আইপিএল খেলতে যাওয়া সাকিব আল হাসানকে।


কেন সাকিবকে চিঠি দেওয়া হবে? সানরাইজার্স হায়দরাবাদের একাদশে সুযোগ মিলছে না। টানা ছয় ম্যাচ আছেন সাইড বেঞ্চে বসে। একাদশে সুযোগ না পেলেও বিশ্বকাপের প্রস্তুতি যেন ভালোভাবে নেওয়া যায়, সে জন্য ঢাকা থেকে উড়িয়ে নিয়েছেন শৈশবের কোচ সালাউদ্দীনকে। এদিকে বাংলাদেশ দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরু হবে ২২ এপ্রিল। সাকিব কি এই ক্যাম্পে যোগ দেবেন, নাকি ভারতেই থাকবেন?


বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান আজ সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ক্যাম্পে যোগ দিতে সাকিবকে চিঠি দেওয়া হবে, ‘আমাদের ক্যাম্প শুরু হচ্ছে ২২ তারিখ থেকে। বলেছি সাকিবকে চিঠি পাঠাতে। এখনই চিঠিটা দিয়ে জানিয়ে দিতে যে ক্যাম্প শুরু হচ্ছে, সে যেন যোগ দেয়। দেখা যাক সে কী উত্তর দেয়। সে আসবে কি আসবে না, এটা নিয়ে আমার সঙ্গে কথা হয়নি। আমার মনে হয়েছে যেহেতু ক্যাম্প শুরু হচ্ছে, তাকে একটা চিঠি দেওয়া দরকার, যাতে সে যোগ দিতে পারে।’


সামনে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ, এরপরই বিশ্বকাপ। চোটে পড়ায় নিউজিল্যান্ড সফরে যেতে পারেননি, বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে আন্তর্জাতিক আবহে হওয়া আইপিএলের মতো ভীষণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ একটা টুর্নামেন্ট হতে পারত সাকিবের জন্য আদর্শ। কিন্তু সে সুযোগটা হচ্ছে না। বিদেশি কোটায় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকায় একাদশে জায়গা পাওয়া কঠিন। সময়টা কাজে লাগাতেই সাকিব ডেকে নিয়েছেন কোচ সালাউদ্দীনকে। ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেলে সালাউদ্দীনের সঙ্গে একান্তে প্রস্তুতি ভালো হবে, নাকি দলের সঙ্গে যোগ দেবেন, সিদ্ধান্ত সাকিবকেই নিতে হবে।


আইপিএল শেষ হবে ১২ মে। বাংলাদেশ দল আয়ারল্যান্ডের উদ্দেশে উড়াল দেবে ১ মে। সাকিব চাইলেও আইপিএলের পুরোটা দলের সঙ্গে থাকতে পারবেন না। তবে একাদশে থাকুন আর না থাকুন, তাঁর ফ্র্যাঞ্চাইজি তো চাইবেই সাকিব যতটা সম্ভব স্কোয়াডে থেকে যান। এখন একাদশে প্রয়োজন পড়ছে না, সামনে যেকোনো সময়ে তো পড়তেও পারে। তা ছাড়া আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী, সাকিব স্কোয়াডে থাকলেই কেবল পারিশ্রমিকের অন্তত ৮০ শতাংশ পাবেন। স্কোয়াডে থাকতে না পারলে সেই দিনগুলোর পারিশ্রমিক নাও দিতে পারে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।


সর্বশেষ সংবাদ