রোববার, ২৪ মার্চ, ২০১৯ | | ১৭ রজব ১৪৪০
banner

সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাচনে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯, ১০:৩৬ পিএম

সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাচনে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ 

৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ তৃনমুলের ভোটে নির্বাচিত প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মঈনুল হাসান নাহিদ ও  সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে এডভোকেট তাহমিনা আক্তার তুহিন নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার  (টংগিবাড়ী, লৌহজং ও সিরাজদিখান ) মোঃ আনিছুর রহমান সিরাজদিখান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আর কোন প্রার্থী না থাকায় এ দুজনকে পৃথক পৃথক চিঠিতে নির্বাচিত হিসেবে ঘোষণা করেন ।  

তাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা, বিধি ১৩ এর  উপবিধি (১) এ দফা গ  অনুযায়ী অন্য কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় ও তাদের মনোনয়ন পত্র বৈধ হওয়ায় তাদেরকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে।

আগামী ৩১ মার্চ সিরাজদিখান উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ভোট গ্রহণ হবে।

আওয়ামীলীগ তৃনমুলের ভোটে নির্বাচিত প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভাইস চেয়ারম্যান  ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মঈনুল হাসান নাহিদ বলেন, যোগ্যতার বিচারে ও আমাকে ভালোবেসে আর কোনো প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। তাই আমাকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া মানে আমার দায়িত্ব বেড়ে যাওয়া। তাই সবার সহযোগিতা নিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো। এজন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। 

চারিদিকে যখন দলাদলি আর হাইব্রীডের ছড়াছড়ি,ঠিক তখনি সিরাজদিখাঁন উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী অঙ্গসংগঠন এক নজিরবিহীন অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো।

মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে সিরাজদিখাঁন উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট তাহমিনা আক্তার তুহিনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত করেছেন।

সিরাজদিখাঁন উপজেলার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে তারুন্যের প্রতিনিধি হিসেবে তারা নেতৃত্ব দিবে।


মঈনুল হাসান নাহিদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি:

তিনি মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার কোচিয়ামোড়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে  জন্মগ্রহণ করেন। শৈশব থেকে অদ্যবধি কেটেছে মুন্সীগঞ্জেই।  মরহুম  হেদায়েতউল্লাহর  পুত্র তিনি । বাবা ছিলেন একজন সরকারী কর্মকর্তা ।

তিনি নাহিদ ট্রেডার্স এর স্বত্বাধিকারী । তিনি বহুদিন যাবৎ সুনামের সহিত ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন ।

ছাত্র রাজণীতিতেও তিনি বেশ সুনাম  কুড়িয়েছেন । তিনি একজন দক্ষ সংগঠক । তিনি গণতান্ত্রিক সচেতনতা, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, নারী-পুরুষের বৈষম্য দূরিকরণ, ইভটিজিং ও মাদক প্রতিরোধসহ বিভিন্ন সমাজ সচেতনতা মূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ত।

প্রতিভাবান এই রাজনৈতিক তার দক্ষতার মাধ্যমে জয় করুক সকলের মন। রাজনৈতিক অঙ্গনে তাঁর পথচলা হোক সুদীর্ঘ।

এডভোকেট তাহমিনা আক্তার তুহিনের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি:

তিনি মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের মোল্লাকান্দি গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে  জন্মগ্রহণ করেন। শৈশব থেকে অদ্যবধি কেটেছে মুন্সীগঞ্জেই।  বালুচর ইউনিয়নের সাবেক সফল চেয়ারম্যান ও ত্যাগী আওয়ামীলীগ নেতা মরহুম  গোলাম হোসেনের ১ম কন্যা তিনি । বাবা ছিলেন আওয়ামীলীগের একজন নিবেদিত প্রান ।

তিনি সিরাজদিখাঁন উপজেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকা বারের একজন আইনজীবি ।

এছাড়াও তিনি সিরাজদিখান উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও সিরাজদিখান বিআরডিবির চেয়ারম্যান এডভোকেট শেখ তাজুল ইসলাম পিন্টুর সহধর্মিণী।





সর্বশেষ সংবাদ