রোববার, ২৪ মার্চ, ২০১৯ | | ১৭ রজব ১৪৪০
banner

বৃষ্টিতে ৩ কোটি টাকার ক্ষতি

বৃষ্টিতে সিরাজদীখানের ইটভাটা মালিকদের মাথায় হাত

প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৪ পিএম

বৃষ্টিতে সিরাজদীখানের ইটভাটা মালিকদের মাথায় হাত

ইমতিয়াজ উদ্দিন বাবুল,সিরাজদীখান থেকে-

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজলোয় গত কয়কে দিনের বৃষ্টেিত ৫০ টি ইট ভাটার ব্যাপক ক্ষতি হয়ছে। ইটভাটার প্রস্তুকৃত কাঁচা ইট বৃষ্টেিত ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। এতে ওইসব ইটভাটা মালিকদের সব মিলিেিয় প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়ছে বলে দাবী করেছেন ইটবাটার মালিকগন।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,উপজলোর বালুচর,বাসাইল,কেয়াইন ৩ টি ইউনিয়নে প্রায় ৫০টি ইটভাটা রয়েছে। কয়েক দিনের টানা বৃষ্টরি পাশাপাশি রোদ না থাকার কারণে  ওইসব ইটভাটার প্রস্তুকৃত কাঁচা ইট নষ্ট হয়ে গেছে। 

এতে সব মিলিয়ে ওই পরমিান টাকার ক্ষতি হয়েছে।ইটভাটার মালিকরা জানান, এই শীত মৌসুমে এমন টানা বৃষ্টি হবে,এমন তারা কেউই আশা করেননি। গভীর সমুদ্রে লঘুচাপের কারণে হঠাৎ বৃষ্ট শুরু হবে এমন বুঝতে না পারায় তারা বৃষ্টি মোকাবলোয় প্রস্তুত  ছিলেন না।  এ কারণে প্রস্তুকৃত কাঁচা ইট পানিতে ভিজে নষ্ট হওয়ায়  তারা ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়ছেনে। এ ছাড়া বৃষ্টরি  কারণে ইট ভাটাগুলোর আগুন নিভে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। 

এদিকে এ অবস্থার কারণে গত কয়েকদিন ধরইে ইটভাটা গুলোর প্রায় ১৫ হাজার  শ্রমকি বেকার সময় পার করছেন।আয়-রোজগার বলে কিছুই নেই তাদের। 


উপজলো ইটবাটা মালকি সমতিরি সাধারন সম্পাদক  আব্দুল মান্নান বলনে, এভাবে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হবে বুঝে উঠতে পারিন। টানা বৃষ্টরি কারণে প্রস্তুকৃত কাঁচা ইট ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। এতে সব ইটভাটা মালিকরাই ব্যাপক ক্ষতির সন্মূখিন হয়েছেন। 

 নুর ব্রিকফিল্ড এর মালিক সামছুল মোল্লা  বলেন,আমার প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার কাচা ইট নষ্ট হয়ে গেছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলনে,র্বষা মৌসুমের কারণে এমনেিত ইটভাটার কাজ দেরিতে শুরু হয়।এরপর আবার এই অপ্রত্যাশিত ক্ষতি। যা কেটে উঠতে ইটভাটা মালিকদরে অনেক বেগ পেতে হবে বলে মালিক সমিতির এই নেতা দাবি করেন ।


সর্বশেষ সংবাদ