রোববার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ | | ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪০
banner

বাড়িতে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষা হলে বিউটি

প্রকাশ : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬:৪১ পিএম

বাড়িতে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষা হলে বিউটি

বাবার লাশ বাড়িতে রেখেই পরীক্ষা হলে বসল বিউটি নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। একদিকে মৃত বাবার জন্য কান্না অন্যদিকে বাবার স্বপ্নকে পূরণ করতে পরীক্ষার হলে বসা।

এমনি এক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা উপজেলার বড়খাপন ইউনিয়নের বড়খাপন গ্রামে।

জানা যায়, মঙ্গলবার ভোররাতে বাবা মো. আনোয়ার হোসেন মারা যাওয়ার পর  বড়খাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুশফিকুর রহমান রুবেলের সহযোগিতায় ওই ছাত্রী পরীক্ষায় অংশ নেয়।

স্কুলজীবনের প্রতিটি পরীক্ষাতেই বাবার হাত ধরে যেত বিউটি, কিন্তু বিধির অমোঘ বিধানে বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখেই কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে যেতে হলো।

পরীক্ষার হলে গিয়ে দেখা যায়, ছাত্রীটি বাম হাতে চোখ মুছে আর ডান হাতে কলম ধরে। এভাবেই বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়েছে বিউটিকে।

আর এ সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন পরীক্ষার হলে বিউটি আক্তারকে সান্ত্বনা জানাতে গিয়ে ভাষাহীন হয়ে পড়েন। 

তিনি বলেন, পরীক্ষা হলে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, যাতে নির্বিঘ্নে বিউটি পরীক্ষা দিতে পারে। তার যেন কোনও অসুবিধা না হয় সেটি দেখতে সবাইকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বিউটির বাবা মো. আনোয়ার হোসেন ছিলেন বড়খাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি। মস্তিস্কে রক্তকরণ হয়ে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সর্বশেষ সংবাদ