মালয়েশিয়াকে ‘উচিত শিক্ষা’ দিতে চায় ভারত

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে কাশ্মীর নিয়ে মালয়েশিয়া ভারতের বিরোধিতা করায় ক্ষুব্ধ নয়াদিল্লি এবার জবাব দিতে চাইছে। মালয়েশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক হ্রাস এমনকি প্রয়োজনে ছিন্ন করার কথাও ভাবছে মোদি সরকার।

এছাড়া ভারতের আলোচিত ইসলামি বক্তা জাকির নায়েককে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য মালয়েশিয়া কিছুই করছে না বলে গত কয়েক মাস ধরে চাপা ক্ষোভ চলছে ভারতে। এর মধ্যে কাশ্মীর নিয়ে মালয়েশিয়ারবিরোধী অবস্থানের কারণে সেই ক্ষোভ আরো বেড়েছে।

পাম তেল উৎপাদনে বিশ্বের প্রথম সারির দেশ মালয়েশিয়া। বিশ্বে মালয়েশিয়ার পাম তেলের সবচেয়ে বড় ক্রেতা ভারত। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভারত দেশটি থেকে ২০০ কোটি ডলার মূল্যের প্রায় ৪০ লাখ টন পাম তেল আমদানি করেছে।

কাশ্মীর ইস্যুতে বিরোধী অবস্থানের কারণে এবার মালয়েশিয়া থেকে পাম তেল আমদানির পরিমাণ কমিয়ে দেয়ার কথা ভাবছে মোদি সরকার। সরকারি সূত্রের বরাতে টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, মালয়েশিয়ার বদলে ইন্দোনেশিয়া থেকে সহজেই পাম তেল আমদানি করতে পারে ভারত।

গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ভারত-মালয়েশিয়া দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে ভারতের ঘাটতি ছিল ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার। মালয়েশিয়ায় রফতানির তুলনায় দেশটি থেকে আমদানি বেশি করে ভারত। এবার এ বাণিজ্য ঘাটতি পূরণে চিন্তা করা হচ্ছে।

নয়াদিল্লির আরও ক্ষোভ দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নত করার জন্য সক্রিয় ছিল ভারত। সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ২০১০ সালে মালয়েশিয়ার সঙ্গে কৌশলগত চুক্তি করেছিলেন। তবে এবার সবকিছু নিয়ে নতুন করে ভাবা শুরু করেছে ভারত।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে দুর্বৃত্তদের হামলায় চোখ হারাতে বসেছে ভ্যান চালক জামাত মোল্যা

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে দুর্বৃত্তদের অতর্কিত হামলায় চোখ হারাতে বসেছেন ভ্যান চালক জামাত মোল্যা (৪৫)। আহত ভ্যান চালককে প্রথমে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভ্যান চালক জামাত মোল্যা গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার সাজাইল ইউনিয়নের রাতকান্দি গ্রামের বাসিন্দা।

জানা গেছে, গত ১৪ অক্টোবর উপজেলার মাজড়া বাজার থেকে জামাত মোল্যার ভ্যানে তিনজন যাত্রী নিয়ে রাতকান্দি গ্রামে যাচ্ছিলেন। রাতকান্দি গ্রামের সোহেল শেখের বাড়ির কাছে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একদল লোক রামদা, লাঠি ও লোহার রড নিয়ে ভ্যান চালক জামাতের ওপর হামলা করে ভ্যানের গতিরোধ করে। এতে ভ্যান চালক জামাত মোল্যা রাস্তায় পড়ে যায়। পরবর্তীতে ভ্যানে থাকা যাত্রীদের বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে ওই দুর্বৃত্তরা।

দুর্বৃত্তদের হামলায় ভ্যান চালক জামাত মোল্যাসহ ইকলাছ, সুজন ও আজিম নামে চারজন গুরুত্বর আহত হন। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে কাশিয়ানী হাসপাতালে ভর্তি করে। গুরুত্বর আহত জামাত মোল্যাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জামাতের ডান চোখ ও মাথায় প্রচন্ড আঘাত লাগে। তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
জামাত মোল্যার স্ত্রী সাবিনা বেগম সাংবাদিকদের জানান, ভ্যানের যাত্রীদের সাথে ওই গ্রামের ইমরুল সরদারের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। তার নেতৃত্বে এ হামলা হয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আব্দুল মুহিদ জানান, জামাতের চোখের অবস্থা খুবই খারাপ। তবে চোখ ভাল করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
এ ঘটনায় জামাত মোল্যার আত্মীয় রেজা শেখ বাদী হয়ে কাশিয়ানী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আজিজুর রহমান অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গোপালগঞ্জে ইডিসিএল-এর প্রজেক্টে শ্রমিকদের বিক্ষোভ : বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জ এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানী লিমিটেডের থার্ড প্লান্ট প্রজেক্টের ওয়্যার হাউজে সিবিএ-র আঞ্চলিক অফিস হিসেবে ব্যবহৃত একটি কক্ষে তালা লাগিয়ে দেওয়ায় প্রতিবাদে কর্র্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে শ্রমিকরা। এ সময় তারা বঙ্গবন্ধুর একটি ছবি ভাংচুরের অভিযোগ করে। বৃহস্পতিবার বিকেলে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়ায় ইডিসিএল-এর থার্ড প্লান্ট প্রজেক্টে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

ইডিসিএল-র সিবিএ নেতা কাজী ইউসুফ বলেন, গত এক বছর ধরে তারা ওয়্যার হাউজের ওই কক্ষটি শ্রমিকলীগ বি-২১৮৯ এর আঞ্চলিক অফিস হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে আকস্মিক ভাবে কক্ষটিতে তালা লাগিয়ে দেয় কতৃপক্ষ। এছাড়া সিবিএ-র আঞ্চলিক অফিস হিসেবে ব্যবহৃত ওই কক্ষের দেওয়ালে টাঙ্গানো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের একটি ছবি ভাংচুরের অভিযোগ করেন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের বিচার দাবী করেন।

এ ব্যাপারে ইডিসিএল-এর থার্ড প্লান্ট প্রজেক্টের সাইট ইনচার্জ ও ডেপুটি ম্যানেজার মাফিজুর রহমান শেখ বলেন, একটি শ্রমিক সংগঠন প্লান্টের ওয়্যার হাউজের একটি কক্ষ দখল করে তাদের অফিস হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল। প্লান্টটি আগামী ডিসেম্বরে উৎপাদনে যাওয়ার কথা রযেছে। এটা প্রধানন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রজেক্ট।

ওয়্যার হাউজে আমরা প্রজেক্টের মালামাল রেখেছি। এছাড়া আঞ্চলিক পর্যায়ে সিবিএ-র কোন অফিস থাকার কোন অনুমোদন নেই। তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুরের বিষয়টি অস্বীকার করেন।
এ ব্যাপারে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক এহসানুল কবির জগলুল বলেন, বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে যারা দোষী সাব্যস্ত হবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে জগলুলের ধারণা, কর্মকর্তারা এ ঘটনা ঘটায়নি।

নেইমারের বার্সায় ফেরা, চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন মেসি

দুই মৌসুম আগে সবাইকে চমকে দিয়ে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা ছেড়ে ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে পাড়ি জমান ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার জুনিয়র। দলবদলের রেকর্ড গড়ে ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে পিএসজিতে যান তিনি।

ক্লাব বদলালেও পারফরম্যান্সে কোনো পরিবর্তন আসেনি নেইমারের। ঘন ঘন ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করেও পিএসজির হয়ে দারুণ খেলছেন তিনি। তবে চলতি মৌসুমের শুরুতে গুঞ্জন উঠেছিল আবারও বার্সেলোনা ফিরবেন নেইমার।

স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যমগুলো জানাচ্ছিলো কথাবার্তাও চূড়ান্ত হয়ে গেছে দুই ক্লাবের মধ্যে। প্রায় দুই মাস নানান গুঞ্জন ও গুজবের পর শেষমেশ আর বার্সেলোনায় ফেরা হয়নি নেইমারের। থেকে গেছেন পিএসজিতেই।

নেইমার বার্সেলোনায় না ফেরায় মনঃক্ষুণ্ণই হয়েছিলেন দলের অন্যতম সেরা তারকা ও প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি। তিনি বারবার চেয়েছিলেন নেইমার যেন ফিরে আসেন ক্লাবে। তা হয়নি।

আর এবার নেইমারের বার্সেলোনায় ফেরার বিষয়ে চাঞ্চল্যকর এক তথ্যই দিয়েছেন মেসি। তার মতে বার্সেলোনার টিম ম্যানেজম্যান্টের অনেকেই নেইমারকে দলে ফেরত চান না। যে কারণে দলবদলে নেইমারকে নিতে পারেনি বার্সেলোনা।

আর্জেন্টাইন সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মেসি বলেন, ‘নেইমারকে বার্সেলোনায় ফেরানো এখন বেশ কঠিন। প্রথমত তাকে চলে যেতে দেখা কঠিন ছিলো, দ্বিতীয়ত সে যেভাবে চলে গেল। আমাদের ক্লাবেই অনেকে আছেন, যারা নেইমারকে দলে দেখতে চায় না। তবে যদি খেলার কথা বলেন, তাহলে অবশ্যই বিশ্বের অন্যতম সেরা নেইমার।’

যুবলীগ চেয়ারম্যানের পা ধরে সালামের ছবি নিয়ে তোলপাড়

অবৈধ ক্যাসিনোকাণ্ডে আড়ালে থাকা ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।
যুবলীগ চেয়ারম্যানের পাযুবলীগ চেয়ারম্যানের পা ধরে সালাম করছেন কয়েকজন। ছবি-ফেসবুক

ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, সড়কের ওপর কালো প্যান্ট আর নীল চেক শার্ট পরে দাঁড়িয়ে আছেন ওমর ফারুক চৌধুরী। আর তিনজন ছেলে তার পা ধরে সালাম করছেন। আরও একজনকে সালাম করতে এগিয়ে যেতে দেখা যাচ্ছে।
তবে পা ধরে সালাম করা ওই যুবকদের চেহারা দেখা না যাওয়ায় তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে তারা যুবলীগের নেতাকর্মী হবেন।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি যুবলীগের বিভিন্ন নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা ও টেন্ডারবাজির অভিযোগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের পর থেকে সংগঠন‌টির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর নামও উঠে আসে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার করা হয় যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ ভূঁইয়া, যুবলীগ নেতা জি কে শামীমসহ অনেকেই। যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সম্পৃক্ততাও বেরিয়ে আসে।

তার আলোকে ইতিমধ্যেই ওমর ফারুক চৌধুরীর ব্যাংক হিসাব তলব করা ছাড়াও তার বিদেশে যাত্রার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এর পর থেকেই আড়ালে চলে যান ওমর ফারুক।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তাকে ছাড়াই সম্মেলনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন সংগঠনটি। তাকে ছাড়াই হয়েছে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সভা। ওমর ফারুক চৌধুরী আর যুবলীগের নেতৃত্বে থাকতে পারছেন না বলে জোর আলোচনা রয়েছে।

ফরিদপুরে ক্রিক্রেট খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৩৬

হারুন-অর-রশীদ,ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩৬ জন আহত হয়েছে। শনিবার (১৯ অক্টোবর) সকালে উপজেলার কুমারখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয় ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নিখিল অধিকারী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার বিকালে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে ছোট ছোট ছেলেদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে ঘটনাটি মীমাংসা করে বাড়িতে ফিরে যাওয়ার সময় নাসির মাতুব্বরকে মারধর করে একটি গ্রুপ। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার সকালে নাসির মাতুব্বরের লোকজন ও কাউস মাতুব্বরের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

তিনি আরো জানান, এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জনসন বেবি পাউডারে ক্যান্সারের উপাদান, বাজার থেকে তুলে নেয়ার ঘোষণা

মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানি জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডারে ক্ষতিকর অ্যাসবেস্টসের সন্ধান পাওয়া তা বাজার থেকে তুলে নিচ্ছে কোম্পানিটি।

নতুন করে আবরও বেবিপাউডারের বোতলে অ্যাসবেস্টস মেলায় বাজার থেকে এটি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় জনসন অ্যান্ড জনসন।

শুক্রবার বিপাউডারের বোতলে অ্যাসবেস্টস মেলায় বাজার থেকে এটি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় জনসন অ্যান্ড জনসন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানায়, শুক্রবার বেশকিছু বেবিপাউডারের বোতলে অ্যাসবেস্টস মেলায় বাজার থেকে এটি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এরপরপরই শেয়ারবাজারে জনসন অ্যান্ড জনসনের স্টকে ৬ শতাংশ দরপতন হয়। এছাড়া অ্যাসবেস্টসের অভিযোগ ছাড়াও এ প্রতিষ্ঠান বর্তমানে আরও বেশ কিছু আইনি জটিলতার রয়েছে।

এর আগে ২০০২ সালে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানায়, কয়েক দশক ধরেই জেএনজে জানতো যে, তাদের ট্যালকম পাউডারে অ্যাসবেস্টস আছে। এ বিষয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা চললেও তারা তা অস্বীকার করে আসছে।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হয়, কঠোর মান যাচাইয়ের মধ্য দিয়ে নিশ্চিত করা হয় যে, জেএনজের কসমেটিক ট্যাল্ক নিরাপদ। বছরের পর বছর নিজেদের ও ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিন্সট্রেশন’র (এফডিএ) পরীক্ষায় আমাদের পাউডারে অ্যাসবেস্টসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

কিছু কিছু মেডিক্যাল গবেষণা বলে, দীর্ঘকাল অ্যাসবেস্টসের সংস্পর্শে মেসোথেলিওমা ও ফুসফুস ক্যান্সারের আশঙ্কা থাকে।

সর্বশেষ গত ১৭ অক্টোবর বিভিন্ন দেশে নারী ভোক্তাদের বিভ্রান্ত করে ট্রান্সভ্যাজাইনাল সার্জিক্যাল ম্যাশ যন্ত্রের মার্কেটিং সংক্রান্ত অভিযোগে এ কোম্পানিকে কয়েক মিলিয়ন ডলার জরিমানা গুণতে হয়।

চট্টগ্রামে বাসায় মিলল বাবা-মেয়ের গলাকাটা মরদেহ

জাহাঙ্গীর শামস: চট্টগ্রামের বন্দর থানাধীন এলাকার একটি বাসায় বাবা ও মেয়ের গলাকাটা মরদেহ পেয়েছে পুলিশ। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে খবর পেয়ে নগরীর নিমতলার শাহআলম ভবনের ওই বাসায় যায় পুলিশ।
নিহত দুজন হলেন- মো. আরিফ (৩৫) এবং তার মেয়ে বিবি ফাতেমা (৪)।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুকান্ত চক্রবর্ত্তী বলেন, বাবা ও মেয়ের গলায় ছুরিকাঘাতে মৃত্যু হয়েছে। রক্তমাখা একটি ছোরাও পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, আমরা ঘটনাস্থলেই আছি। এখন এর বেশি বিস্তারিত বলতে পারছি না। সিআইডির ফরেনসিক টিম ও কাজ করছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে বুড়ির বাঁধ শুখ নদী এলাকায় মাছ ধরার মহা উৎস

কামরুল হাসান,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে শুক নদীর বুড়ির বাঁধ এলাকায় মাছ ধরার ধুম পড়েছে। শনিবার (১৯ অক্টোবর) ভোরে সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের বুড়ির বাঁধের গেট খুলে দেওয়ায় মাছ ধরতে নামে কয়েক গ্রামের সহস্রাধিক জেলেসহ উৎসুক মানুষ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মাছ ধরার জন্য গ্রাম ও শহরের শত শত মানুষ ব্যস্ত। নারী-শিশুসহ বৃদ্ধরাও রয়েছেন এ দলে। সবাই জাল, পলো, খোচা ও লাফিজাল নিয়ে নেমে পড়েছেন। এছাড়া যাদের মাছ ধরার সরঞ্জাম নেই তারাও মাছ ধরতে নেমে গেছেন কাঁদার মধ্যে। সব মিলিয়ে এখানে এক ধরনের মাছ ধরার উৎসব দেখা গেছে।

আকচা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সুব্রত কুমার বর্মন ঠাকুরগাঁও ডেইলি সংবাদ তে জানান, বর্ষাকালে পানি ধরে রাখার পর কার্তিক মাসের প্রথম দিকে বুড়ির বাঁধের গেট খুলে দেওয়া হয়। এতে উজানের পানি কমে যায়। আর এ সুযোগে মাছ ধরতে নামে কয়েক গ্রামের সহস্রাধিক মানুষ।

ভোর থেকে শুরু হওয়া এ মাছ ধরা চলবে রবিবার (২০ অক্টোবর) পর্যন্ত বলেও জানান তিনি।ঠাকুরগাঁও শহরের মুন্সি পাড়ার রিদয় বলে ভোর থেকে মাছ ধরতে আসে সে বলেন, মাছ ধরতে ভোরে এখানে এসেছি। শখের বশে মাছ ধরছি। যা পাব তাতেই আনন্দ।
তার মতো মুন্সিপাড়া শামসুল ইসলাম (পান দোকান্দার) গ্রাম থেকে মাছ ধরতে আসে জানান, এখানে মাছের মধ্যে রয়েছে- ট্যাংরা, পুঁটি, শিং, তেলাপিয়া, টেরিকা, কৈ, মাগুর ও শোল।

দেশি প্রজাতের মাছ কিনতে আসা গড়েয়ার তারিকুল ইসলাম বলেন, এখানে পুঁটি মাছ দেড়শ’ থেকে ৩শ’ টাকা আর গছিপোয়া মাছ সাড়ে ৩শ’ টাকা কেজি দরে পাওয়া যাচ্ছে। তাজা মাছের স্বাদই আলাদা, তাই একটু কষ্ট হলেও বুড়ির বাঁধে এসেছি মাছ কিনতে।

মহিলা এমপি বুবলীর হয়ে পরীক্ষা দিচ্ছেন ৮ ভাড়াটে ছাত্রী

নরসিংদী আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী ঢাকায় থাকলেও তার হয়ে নরসিংদীতে বিএ পরীক্ষা দিচ্ছেন প্রক্সি প্রার্থীরা। এ পর্যন্ত আটজন ছাত্রী এমপির হয়ে পরীক্ষা দিয়েছেন। বেসরকারি টেলিভিশন ‘নাগরিক টিভি’ প্রচারিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী সন্ত্রাসী হামলায় নিহত নরসিংদীর সাবেক পৌর মেয়র লোকমান হোসেনের স্ত্রী।

নাগরিক টিভি’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে জমা দেয়া হলফনামা অনুযায়ী মহিলা সংরক্ষিত সংসদ সদস্য ও সন্ত্রাসী হামলায় নিহত নরসিংদীর সাবেক পৌর মেয়র লোকমান হোসেনের স্ত্রী এইচএসসি পাস। পরে উচ্চশিক্ষা অর্জনে তিনি উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএ কোর্সে ভর্তি হন। তবে বিএ পাস করার জন্য তিনি অনিয়মের আশ্রয় নিচ্ছেন।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএ কোর্স পর্যন্ত চারটি সেমিস্টার ও তেরোটি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও তিনি একটিতেও অংশগ্রহণ করেননি। কিন্তু তারপক্ষে এখন পর্যন্ত ৮ জন নারী পরীক্ষা দিয়েছেন। সবাই সবকিছু জানলেও এমপির ভয়ে কেউ কিছু বলেনি। পরীক্ষার হলে সংসদ সদস্যের রোল নম্বরের সিটে বসা পরীক্ষার্থীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি দাবি করেন তার নাম তামান্না নুসরাত বুবলী।

পরে তার আইডি কার্ড আছে কিনা জানতে চাইলে ওই পরীক্ষার্থী বলেন, তার সাথে আইডি নেই। পরে ওই প্রতিবেদক পরীক্ষার্থীকে জিজ্ঞেস করেন, তামান্না নুসরাত বুবলী একজন সংসদ সদস্য। তিনি এই সিটে পরীক্ষা দিচ্ছেন কেন? তখন ওই পরীক্ষার্থী নিজেকে সংসদ সদস্য তামান্না নুসরাত বুবলী বলে দাবি করেন। তার আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে এবং সে জিডির কপি নিয়ে এসেছে। তাই তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়া হচ্ছে। সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন