১৫, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, রোববার

“বনের বাঘে খায়না,মনের বাঘে খায়”

জাতি হিসেবেই আমরা একটু হায় -হুতোশ ধরণের এবং অতিমাত্রায় নবাব কিসিমের। জানুয়ারী থেকে এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ১৫০০০ আর মৃতের সংখ্যা প্রায় ২৫। মৃতের মধ্যে রয়েছে সিভিল সার্জন, ডাক্তার, আমলা, শিক্ষক, স্কুল পড়ুয়া বাচ্ছা আর আতঙ্কে আছেন দেশের আঠার কোটি মানুষ।

মধ্য আমেরিকার দেশ হন্ডুরাস এবং বলিভিয়ার রাজধানী লাপাজে ও ডেঙ্গু মহামারী আকার ধারণ করেছে। ডেঙ্গুকে জাতীয় দুর্যোগ ঘোষণা করে তারা মোকাবেলা করছেন সমন্বয় করে। দেখলেনতো !!! আমাদের মেয়র মহোদয়েরা,সরকার, আমলা, সুযোগসন্ধানী হাসপাতালগুলো আর জনগণের সমন্বয়হীনতা কোথায় গিয়ে ঠেকেছে ..????? এখানে সরকারী দল- বিরোধী দল, পজিশন – অপজিশন আর ক্রেডিট – ডিসক্রেডিট নিয়ে ঠেলাঠেলি চলছে পুরোদমে !! তাই বলে দেশের দুর্যোগের সময় !!!!

কোকো-৪ ট্রাজেডির সময় উদ্ধারকর্মী ছিলাম, রানা প্লাজা ধ্বসের পর বাংলাদেশ ব্যাংকের সহায়তা টিমের সদস্য ছিলাম ; তখন দেখেছি দুর্যোগে আমার দেশের সামর্থ, দক্ষতা আর হুজুগে বাঙ্গালীদের ( কিছু খামোখা পাবলিক) ডিস্টার্ব করার মানসিকতা ( এমনকি তারা এসব জায়গায় গিয়েও মারামারি করে)। একজন হ্যামার, টর্চ, পানি ; এ সব বলে চিৎকার দিলে সবাই জায়গায় দাঁড়িয়ে এসব বলে চিৎকার দিতে থাকে। কিন্তু, কোথায় টর্চ ? কোথায় হ্যামার ? কোথায় পানি ? খুবই অপ্রতুল দুর্যোগ মোকাবিলার যন্ত্রপাতি। তবে রানা প্লাজা ট্রাজেডি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মোকাবিলা করায় অনেকটা গোছানো ছিলো।

কথায় আছে, “বনের বাঘে খায় না, মনের বাঘে খায়”। মশা দেখলেই এডিশ মশা মনে হয় ! একটা মশা কামড় দিলেই গায়ের তাপমাত্রা বেড়ে যায় !! বর্তমানে ডেঙ্গু রোগের চেয়ে ডেঙ্গু আতঙ্ক বড় সমস্যা। এখন আর সিটি কর্পোরেশনের ভেজালযুক্ত/ ভেজালমুক্ত মশার ঔষধ,সভা, সেমিনার বা নাগরিক সতর্ক বার্তার আশায় না থেকে দেশের কোনো সুশৃঙ্খল বাহিনী( ফায়ার সার্ভিস/ সেনাবাহিনী) দিয়ে দেশের সুনাগরিকদের সাথে নিয়ে মশার আস্তানা গুড়িয়ে দিয়ে মানুষকে শঙ্কামুক্ত করতে হবে ।

মোঃ মহিউদ্দীন
ব্যাংকার,ঢাকা।

মতামত