১৫, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, রোববার

শরীয়তপুরে ইভটিজিংয়ের শিকার ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী, প্রতিবাদ করায় পরিবারের উপর হামলা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ॥
শরীয়তপুরে জাজিরা উপজেলার বি,কে নগর ছোবান্দি মাদবর কান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী সাদিয়াকে জোরপূর্বক ছিলতা হানির সিকার হয়েছে ,এস্থানীয় বকাটে সুমন মোল্লা (২২) দ্বারা। এই ঘটনায় সাদিয়ার পরিবার প্রতিবাদ করায় উল্টো পরিবারের উপর হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালায়,এতে করে একই পরিবারের ৩ জন আহত হয়েছে।
আহতরা হচ্ছেন, ঠান্ডু মৃধা(৩৫),জসিম মৃধা(৩২) ও মনু মৃধা(৩৬)। হামলাকারীরা এ সময় বাড়িঘর কুপিয়ে মূল্যবান আসবাবপত্র নষ্ট করে এবং লুটপাট চালায়। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে। আহতদের জাজিরা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঠান্ডু মৃধা ও জসিম মৃধার অবস্থা আশঙ্খা জনক হওয়া তাদেরকে উন্নত চিকিৎসারজন্য ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করেন।

সোমবার সরেজমিনে গিয়ে আহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জাজিরা উপজেলার বি,কে,নগর ইউনিয়নের ছোবান্দি মাদবর কান্দি গ্রামের ছোবান্দি মাদবর কান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এর ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী সাদিয়া আক্তার (১০)কে একই গ্রামের হাকিম মোল্লার লম্পট ছেলে সুমন মোল্লা(২২) দীর্ঘদিন ৬ মাশ যাবত স্কুলে যাওয়ার ও আসার পথে বিভিন্ন সময়ে প্রেম নিবেদন সহ কূ-প্রস্তাব দিতো এবং উত্যক্ত করিতো লম্পট সুমন। কিন্তু গত ০৮/তারিখ রবিবার দুপুর ১২টার দিকে সাদিয়া আক্তার স্কুল হইতে নিকটবর্তী দোকান হইতে টিফিন কিনে ক্লাসে ফেরার সময় উৎপেতে থাকা,সুমন তাকে জোর করে মুখ চাপিয়া গ্রামস্থ মজিদ মোল্লার বাড়ীর দক্ষিণে কাচারাস্তায় নিয়া জায়। এবং সাদিয়াকে ভয় দেখাইয়া,যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে জোর পূর্বক সাদিয়াকে ঝাপটাইয়া ধরিয়া শরীরের বিভিন্ন লজ্জাস্থানে এস্থানানে হাতদিয়ে স্পর্শ ও গলায় চুমু দেয়। এর পর সাদিয়া চিৎকার দিলে লম্পট সুমন দৌড়াইয়া পালাইয়া যায়। বিষটি সাদিয়া তার পরিবারকে জানালে,সুমন এর পরিবারের কাছে বিচার প্রদান করেন সাদিয়ার পরিবার। কিন্তু লম্পট সুমন তাতেই খান্ত হয়নি,ঘটনার ওইদিন সাদিয়া বাসার সামনে গিয়ে সন্ত্রাসী¡ ইয়াছিন মোল্লা,হাকিম মোল্লা,তৈয়ব আলী মাদবর,সামাদ মোল্ল,ইউনুছ মোল্যা, বোরহান মোল্লা,আল আমিন মোল্লা,মোঃ আফছার মোল্লা,মোঃ আনোয়ার মোল্লা,নুরু মিয়া মোল্লা,নুরু সরদার,ইব্রাহিম মোল্লা,মোঃশাহিন মোল্লা,মজিবর মোল্লা,মজিবর মোল্লা,জালাল মাল্লা,মোঃসালাম মোল্লা,শহি মোল্লা,আল আমিন সরদার,রশিদ মোল্লা,ফারুক মোল্লা,লোকমান মোল্লা,ওসমান মোল্লা। উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী সুমন মোল্লা নেতৃত্বে ও তার লোকজন রবিবার ওইদিন রাত ৮টার দিকে সাদিয়া আক্তার এ পিত্রা ও আপন চাচার জসিম মৃধা,ঠান্ডু মৃধা,মনু মৃধার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা বাড়িঘর কুপিয়ে ঘরের ভেতরে থাকা আসবাবপত্র ভাংচুর করে এবং লুটতরাজ চালায়। এ ছাড়া নগদ ৫০,৫০০ টাকা ও গলায় থাকা আট আনা স্বর্ণের চেইন, ছিড়িয়া নিয়া জায় জাহার মূল্য আনুমানিক ২৫.০০ টাকা। এ ঘটনায় সাদিয়ার নানা তোতা মৃধা জাজিরা থানায়,তিনটি অভিজগ দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সুমন মোল্লার বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তার আন চাচার সাথে কথা বল্লে তিনি বলেন সাদিয়ার বাব দাদার সাথে আমাদের পূর্ব শত্রুতা রয়েছে। তাই তারা আমাদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করতাছে।আমাদের বিরুদ্ধে সকল ভিজগ মিথ্যা।

এ ব্যাপারে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) বেলায়েত হোসেন বলেন,অভিযোগ পাওয়ার সাথে বিষটি আমরা আমলে নিয়ে,আমার পুলিশ দিয়ে তদারকি করছি,অভিযুক্তদের ধরার চেষ্টা চলছে।

মতামত